ঢাকা
২৭শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
১২ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

যৌন শক্তি বাড়াবে যেসব খাবার!

বর্তমান সময়ে যৌন শক্তি কমে যাওয়া ছেলেদের একটি প্রধান সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। যৌন শক্তি কমে যাওয়ার পেছনে অনেক কারনই দায়ী। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে কিছু খারাপ অভ্যাস এবং খাদ্যাভাস যৌন ক্ষমতার উপর মারাত্মক প্রভাব ফেলতে পারে। বিশেষ করে ছেলেদের বয়ঃসন্ধির সময় থেকেই সতর্ক না থাকলে পরিনত বয়সে বা বিবাহীত জীবনে এসে সমস্যায় পরতে হয়। যেমন, অনেক পুরুষই অল্প বয়সে অতিরিক্ত হস্তমৈথুনের ফলে নিজের যৌন জীবনের মারাত্মক ক্ষতি করে ফেলেন। এমনকি নিজেকে ধ্বজভংয় রোগের দিকে ঠেলে দেন। তাই আমাদের সবার যৌন শক্তি বাড়ানোর উপায় কি তা জানার পাশাপাশি কোন কাজ যৌন ক্ষমতা নষ্ট করে তাও জেনে রাখতে হবে।

যৌন শক্তি বাড়ানোর উপায় :
১। যৌন শক্তি বাড়াতে খেজুর :
খেজুর বা খোরমা খেজুরের সাথে যৌন শক্তি এবং শারীরিক শক্তির বিশেষ সম্পর্ক রয়েছে। এ জন্য বিবাহ-শাদিতে আদি কাল থেকেই খোরমা খেজুর বিলি করার একটি রিতি রয়েছে। যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য মূলত খেজুরে বিদ্যমান বিভিন্ন শক্তিশালী খনিজ উপাদান দায়ী। যৌন হালুয়া বা মদক তৈরিতে এ জন্যই খোরমা খেজুর ব্যবহার করতে হয়। শুধু তাই নয় চিকিৎসা বিজ্ঞানেও খেজুরকে যৌন শক্তি বৃদ্ধির জন্য বিশেষ একটি খাদ্য উপাদান হিসিবে গন্য করা হয়। আরবের মানুষের খাদ্য তালিকায় প্রধান খাদ্য হিসেবে থাকে খেজুর। যার কারনে আরবিয়ানদের শারীরিক শক্তি এবং যৌন শক্তি অতুলনীয়। খেজুর খেয়ে যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য আপনাকে প্রতিদিন ৩ থেকে ৫ করে খেজুর খেতে হবে অথবা তাজা খেজুর মাখনের সাথে খেতে হবে।

[খেজুর খাওয়ার ৭০ টি উপকারিতা পড়ুন]

২। যৌন শক্তি বাড়াতে মধু :
যৌন শক্তি বাড়াতে মধু – ৭রং
যৌন শক্তি বাড়াতে মধু – ৭রং
মধু হলো যৌন শক্তি বড়ানোর জন্য সর্বজন স্বীকৃত ও প্রমানিত একটি শ্রেষ্ঠ উপাদান। যৌন শক্তি বাড়ানোর উদ্দেশ্য খাঁটি মধু খেলে উদ্দেশ্য বিফলে যাবে না। ইসলাম ধর্ম তথা পবিত্র আল-কোআন এবং অন্যান্য ধর্মেও মধুর কথা বলা হয়েছে বিশদ ভাবে। মধু শুধু যৌন শক্তিই বাড়ায় না; যৌন শক্তি বাড়ানোর পাশাপাশি মধু দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় ! মধু দেহ থেকে দুষিত পদার্থ বের করে দিতে সাহায্য করে; আমাদের ব্রেইন বা মস্তিষ্কে শক্তি বাড়ায় তথা স্মৃতি শক্তি বাড়ায়; মধু আমাদের পাকস্থলিও ভালো রাখে। যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য মধুর বিভিন্ন উপাদান এক্ষেত্রে ভূমিকা রাখে। যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য সকালে খালিপেটে, হাতে মধু নিয়ে চেটে চেটে খেতে হবে ; অথবা এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে ১ বা ২ চামচ মধু মিশিয়ে খেতে হবে।

[মধুর ৩০ টি উপকারিতা কি কি জেনে নিন]

৩। যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য দুধ :
আপনি কখনো না কখনো একজন নববধুকে তার স্বামীর জন্য এক গ্লাস দুধ নিয়ে যেতে দেখেছেন। আমাদের সমাজে সদ্য বিবাহিত ছেলেদের আজও প্রতি সন্ধ্যায় এক গ্লাস করে দুধ খেতে দেয়া হয়। এর কারন আপনে বুঝে গেছেন। দুধ শুধু যৌন শক্তি বৃদ্ধি করে তাই নয়, দুধ যৌন ঘাততি এবং শারিরীক শক্তিও যথেষ্ট বাড়িয়ে দেয়। কারন দুধ হলো এমন একটি আদর্শ খাদ্য যেখানে ভিটামিন সি ছাড়া সমস্ত খাদ্য উপাদান রয়েছে। যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য গরু, মহিষ, ছাগলের দুধ খেতে পারেন। তবে পুরুষের যৌন শক্তি বাড়াতে ছাগলের দুধ অতুলনীয় ! এ জন্য ছাগলের দুধ খেলে উদ্দেশ্য বিফলে যাবে না। অন্য দুধের তুলনায় ছাগলের দুধ তাড়াতাড়ি হজম হয়।

৪। যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য ডিম :
দুধের পরে ডিমের স্থান। যৌন শক্তি বাড়াতে ডিম একটি আদর্শ খাদ্য। সকালের নাস্তায় আপনি আর যাই খান, যৌন উপকারিতা পেতে হলে একটি সেদ্ধ ডিম খেতেই হবে। কারন সেদ্ধ করা ডিমে রয়েছে- আমিষ বা প্রোটিন, ভিটামিন ও স্নেহ পদার্থ। একটি সেদ্ধ ডিম খাওয়ার ফলে আপনার দেহে যথেষ্ট শক্তি সঞ্চার হবে। স্ত্রী গমনের পরে অথবা স্বপ্নদোষ হলে, শরিলের ঘাততি পূরণের জন্য যৌন বিশেষজ্ঞরা সেদ্ধ ডিম খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। তবে অবশ্যই দেশি মুরগির ডিম খাওয়ার চেষ্টা করতে হবে।

৫। যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য কলা :
কলা পুরুষের স্পার্ম বা বীর্যের মান উন্নত করে। এছাড়া কলাতে রয়েছে ব্রমেলাইন নামক এক প্রকার এনজাইম; যা পুরুষের যৌন শক্তি বাড়াতে বিশেষ ভূমিকা রাখে। এর পাশাপাশি কলাতে রয়েছে প্রচুর পরিমানে পটাশিয়াম এবং রিবোফ্লাবিন; যা শরিলকে শক্তিশালী করে তোলে।

৬। যৌন শক্তি বাড়াতে পালংশাক :
বিভিন্ন শাক-সবজির মধ্যে পালংশাক খনিজ উপাদানে ভরপুর। যেমন পালংশাকে আছে প্রচুর পরিমানে ম্যাগনেশিয়াম। এই ম্যাগনেশিয়াম শরীলে রক্ত চলাচল বাড়ায়। যৌন বিশেষজ্ঞদের মতে দেহের রক্ত চলাচল বাড়লে যৌন শক্তি বাড়ে। তাই মাঝে মাঝে পালংশাক ও অন্যান্য তাজা শাক-সবজি খাওয়া যেতে পারে।

৭। যৌন শক্তি বাড়াবে রসুন :
রসুনের উপকারিতা ও সহজলভ্যতার জন্য; রসুন কে বলা হয় গরিবের পেনিসিলিন। সহজ ভাষায় বললে রসুন এমন একটি খাদ্য উপাদান যা নিরবে যৌন জীবনে ভূমিকা রেখে চলে। রসুন যৌন অক্ষম পুরুষের ক্ষমতা বাড়ায়; বীর্য বাড়ায়; বীর্য ঘন করে। এছাড়াও রসুন প্রেশার নিয়ন্ত্রনে রাখে; গ্যাস সমস্যায় উপকার করে; দেহে ব্যাথার প্রশমন করে। তবে এক সাথে ২-৩ কোয়া রসুন খেতে হবে, এর বেশি নয়।

৮। যৌন শক্তি বাড়াতে পেঁয়াজ:
পেঁয়াজের কোন উপদান যৌন শক্তি বাড়াতে ভূমিকা রাখে তা এখনো জানা না গেলেও; পেঁয়াজ যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য আদিকাল থেকেই ব্যবহৃত হয়ে আসছে! এক কোষী পেঁয়াজ ও কালোজিরা মধুর সাথে খেলে যৌন শক্তি বাড়ে; দ্রুত বীর্যপাত বন্ধ হয়; বীর্য ঘন হয়।

৯। যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য গাজর :
আমরা সবাই জানি গাজর একটি সবজি। কিন্তু যৌন শক্তি বাড়ানোর ক্ষমতা রয়েছে গাজরের। এজন্য ১৫০ গ্রাম পরিমান গাজর কুচি নিয়ে; ১ চামচ মধু এবং হাফ সেদ্ধ ডিম মাস দু’য়েক খেতে হবে। এতে করে যৌন শক্তি বেড়ে যাবে।

১০। যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য তরমুজ :
তরমুজ শুধু একটি সুমিষ্ট ফলই নয়; বরং এটি যৌন শক্তি বাড়ানোর গোপন মেডিসিনও। হ্যাঁ, যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য যাবতীয় উপাদান রয়েছে তরমুজে। এজন্য তরমুজকে বলা হয় “প্রাকৃতিক ভায়াগ্রা” ! ভায়াগ্রা হলো যৌন উদ্দীপনা বৃদ্ধির ওষধ ; যা বাজারে কিনতে পাওয়া যায়। কিন্তু তরমুজ এমনিতেই এর বিকল্প হিসেবে কাজ করে। এজন্য তরমুজ খাওয়ার বিকল্প নেই।

১১। যৌন শক্তি বাড়াতে তৈলাক্ত মাছ:
ওমেগা ৩ ফ্যাটি এসিড যৌন শক্তি বাড়াতে বা যৌন জীবনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পলন করে ! আর তৈলাক্ত মাছে থাকে প্রচুর পরিমানে ওমেগা ৩ ফ্যাটি এসিড ! এছাড়া সামুদ্রিক মাছেও প্রচুর পরিমানে ওমেগা ৩ ফ্যাটি এসিড থাকে। তৈলাক্ত মাছ এবং সামুদ্রিক মাছ খেলে দেহের রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পায়; শরীলের ডোপামিন বেড়ে যায়; দেহের গ্রোথ বা বৃদ্ধি জনিত হরমোন নির্গত হয়।

১২। যৌন শক্তি বাড়ায় স্ট্রবেরী:
স্ট্রবেরী একটি টক-মিষ্টি ফল হলেও যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য এটি বিশেষ ভূমিকা রাখে। স্ট্রবেরি দেহের রক্ত চলাচল বৃদ্ধি করে; ফলে শারীরিক সক্ষমতা বৃদ্ধি পায় ! স্ট্রবেরীতে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ‘সি’ এবং অ্যান্টিঅক্সিডেনট; যা পুরুষের স্পার্মের সংখ্যা বাড়ায়।

১৩। যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য বাদাম:
আদিকাল থেকে যৌন শক্তি বাড়ানোর উপায় বা মাধ্যম হিসেবে কাঠ বাদাম কিংবা কাঠ বাদামের দুধ ব্যবহৃত হয়ে আসছে। তবে সকল প্রকার বাদাম যেমন- চীনা বাদাম; কাঠ বাদাম; পেস্তা বাদাম ; কাজু বাদাম খেলে যৌন উপকার পাওয়া যায়।

১৪। যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য আপেল:
বিশেষজ্ঞগণ সকলকেই প্রতিদিন একটি করে আপেল খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন ! বলা হয়ে থাকে প্রতি দিন অন্তত একটি করে আপেল খেলে ডাক্তারের কাছে যেতে হয় না; কোনো রোগে ধরে না। আপেলের শতকরা ৮০ ভাগ জল এবং এটি সকলের পছন্দের একটি সুমিষ্ট ফল। আপেলে রয়েছে দেহের জন্য প্রয়োজনীয় সকল প্রকার ভিটামিন ও খনিজ। আপেল খেলে যৌন শক্তি বাড়ে সাথে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। তাই যৌন শক্তি বাড়ানোর উপায় বা মাধ্যম হিসেবে আপনি প্রত্যহ একটি করে সবুজ আপেল খেতে পারেন।

[আপেলের ১০ টি উপকারিতা পড়ুন]

১৫। কলিজা:
কেউ কেউ কলিজা খেতে পছন্দ করে; আবার কেই পছন্দ করে না। সত্যি বলতে যৌন জীবনে কলিজা খাওয়ার ফল ইতিবাচক ! কেননা কলিজায় প্রচুর পরিমানে জিঙ্ক থাকে। আর জিঙ্ক শরিলের টেস্টোস্টেরন হরমোনের মাত্রা বাড়ানোর পাশাপাশি যৌন শক্তি বাড়ায়। অন্যদিকে দেহে যথেস্ট জিঙ্ক না থাকলে প্রয়োজনীয় হরমোন উৎপন্ন হয় না। তাছাড়া জিঙ্কের কারনে আরোমেটেস এনজাইম নির্গত হয় ।

১৬। মিষ্টি আলু :
আমরা এখনো অনেকেই জানি না যে মিষ্টি আলু একটি উন্নত মানের “সেক্স” ফুড। মিষ্টি আলু শর্করার একটি ভালো মাধ্যম। কিন্তু মিষ্টি আলুতে শর্করা বা কার্বোহাইড্রেট এর পাশাপাশি রয়েছে বিটা ক্যরোটিন। যা যৌন হরমোন তৈরিতে সাহায্য করে। তবে ডায়াবেটিক্স রোগীদের ক্ষেত্রে মিষ্টি আলু এড়িয়ে চলতে হবে।

১৭। যৌন শক্তি বাড়ানোর উপায় হিসেবে কফি খান:
কফি আমরা নিয়মিত পান করলেও অনেকেউ এখনো জানিনা যে কফিতে থাকা ক্যাফেইন যৌন বা সেক্স মুড ঠিক রাখে। এজন্য নিয়মিত কফি পান করা যেতে পারে। দিনে ২ থেকে ৩ বারের অধিক কফি পান করা ঠিক নয়। এত অন্যান্য জটিলতার সৃষ্টি হতে পারে।

১৮। যৌন শক্তি বাড়ানোর উপায় হিসেবে কুমড়োর বীজ খান:
কুমড়োর বীজ প্রকৃতিক ভাবে জিঙ্ক এর সেরা উৎস ! কুমড়ো বীজে রয়েছে জিঙ্ক সহ আরো বিভিন্ন খনিজ উপাদান। জিঙ্ক সহ এই উপাদান গুলো যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য কার্যকর ভূমিকা রাখে। এজন্য কুমড়োর বীজ ঘিতে ভেজে খাওয়া দরকার।

১৯। যৌন শক্তি বাড়ানোর উপায় হিসেবে কালোজিরা খান :

ইসলাম ধর্মে কালোজিরা কে মৃত্যু ব্যতিত সকল রোগের ঔষধ বলা হয়েছে ! যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য কালোজিরা কে বিভিন্ন ভাবে ব্যবহার করা হয়ে থকে। প্রতিদিন কালোজিরা ও মধু খেলে যৌন শক্তি বাড়ে। আবার কালোজিরার তেল ব্যবহার করেও বিশেষ ফল পাওয়া যায়।

[কালোজিরার ৫০ টি উপকারিতা পড়ুন]

২০। যৌন শক্তি বাড়ানোর উপায় হিসেবে ব্যায়াম:

যৌন শক্তি বাড়ানোর উপায় হিসেবে ব্যায়াম
ব্যায়াম করলে শরিলের রক্ত চলাচল বেড়ে যায় ! একটি গবেষনায় চালিয়ে দেখা গেছে – যারা নিয়মিত ব্যায়াম করেন, অন্যদের চাইতে তাদের যৌন শক্তি বেশি হয়ে থাকে ! শুধু তাই নয়; নিয়মিত ব্যায়াম করার ফলে শরিলের ইমিউনিটি সিস্টেম স্ট্রং হয় ! শরীরিক শক্তি এবং কর্মক্ষমতা বাড়ে ! তাই যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য নিয়মিত ব্যায়াম করা দরকার! মনে রাখা দরকার যে আমাদের শরিলকে সুস্থ্য রাখতে ব্যায়ামের কোনো বিকল্প নেই। ডায়াবেটিক্স হলে যৌন শক্তি একবারে কমে যায়; সুতরাং এসকল রোগকে দূরে সরিয়ে রাখতে আমাদের নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে।

আরও পড়ুন

কেন ভিটামিন ডি প্রতিদিন খেতে হবে?
দুপুরের ঘুম ভাব দূর করার উপায়
সিদ্ধ ডিম খেলেই পাবেন যেসব উপকার
যে বিশেষ ৬ কারণে খাবেন মিষ্টি কুমড়া
আমলকির ঔষধি গুণ ও উপকারিতা
টমেটোর পুষ্টিগুণ
নিমের নানা উপকারিতা
করোনার পরে ত্বক আগের অবস্থায় ফেরাবেন যেভাবে