ঢাকা
১৮ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
৪ঠা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

লেটুস পাতার গুণাগুণ

লেটুস পাতা। আমরা সবাই প্রায় এই পাতাটি চিনি। ইতিহাসবিদরা বলেন, এই সবুজ পাতাটির চাষ প্রথম মিশরীয়রা শুরু করেছিল। তারা এই পাতাটি শাক হিসেবে চাষ করতেন। এমনকি এই পাতার বীজ থেকে তেলও বের করা হত। যদিও পরে এই লেটুস পাতার চাষ গ্রীক ও রোমানরা শুরু করে।

লেটুস পাতার আরেক নাম হল আইসবার্গ লেটুস। এই অদ্ভুদ নামের কারণ হল লেটুস বা যে কোনও শাক ফ্রিজে না রাখা হলে তা নষ্ট হয় যেত। বিংশ শতাব্দীতে সব জায়গায় ফ্রিজ পাওয়া যেত না। তাই ক্যালিফোর্নিয়ার লোকেরা বরফের মাধ্যমে শাকগুলি সংরক্ষণ করত। তখন থেকেই এর নাম আইসবার্গ।

লেটুস পাতায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ও খনিজ পদার্থ। এই পাতার মধ্যে থাকে ভিটামিন এ, ভিটামিন সি, ভিটামিন কে, ভিটামিন বি-৬, আয়রন, পটাসিয়াম।
লেটুস পাতা ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াই করতে পারে। কারণ এর মধ্যে বিটা ক্যারোটিন ও লুটিনের মত অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আছে। এই ধরনের অ্যান্টি অক্সিডেন্টগুলি ক্যান্সারের কোষ বৃদ্ধি হ্রাস করে।

লেটুস পাতা ঘুমাতে সাহায্য করে। আপনি যদি অতিরিক্ত পরিমাণে লেটুস পাতা খান তাহলে আপনি অল্প সময়ের মধ্যেই ঘুমিয়ে পড়বেন। কারণ এর মধ্যে ল্যাকট্যাক্যারিয়াম নামক একটি উপাদান থাকে যা ঘুমাতে সাহায্য করে।

আরও পড়ুন

ঋতু পরিবর্তনের জ্বরে যেসব খাবার খাবেন
খুশকি দূর করে অ্যালোভেরা
তারুণ্য ধরে রাখতে তেল
নিজের ত্বকে তেল দিন
আদার গুণাগুণ
চুল পড়া বন্ধ করে আমলকী
যে কারণে খাবেন দারুচিনি ও মেথি চা
ডায়রিয়ার সমস্যা দূর করে বেদানা